Thursday , 5 August 2021
Home / খবর / গোপনে পরিচালককে বিয়ে, অঞ্জু বলেছিলেন ‘ষড়যন্ত্র’

গোপনে পরিচালককে বিয়ে, অঞ্জু বলেছিলেন ‘ষড়যন্ত্র’


ঢাকা, ২২ জুন – পর্দার নায়ক-নায়িকাদের নিয়ে ভক্তদের কৌতূহল একটু বেশিই থাকে। যে কারণে তাদের নিয়ে গুজবও রটে। তাই বলে যা রটে তা যে সবসময় ঘটে না- তা নয়।

বর্তমানে চিত্রনায়িকা মাহি দ্বিতীয় বিয়ে করেছেন কিনা এ নিয়ে গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে। সত্য-মিথ্যা এক সময় খবরের কাগজে শিরোনাম হবেই। তবে চিত্রজগতে এগুলো নতুন নয়। সিনেমার পর্দায় নায়িকার রূপ-যৌবন, অভিনয় দেখে ভক্ত দিওয়ানা হন। মনের পর্দায় সেই নায়িকাকে কল্পনা করেন। ভক্তের কল্পনায় চিরকাল প্রেমের রানী হয়ে থাকতেই নায়িকারা সাধারণত বিয়ের খবর গোপন রাখেন। তারা ভাবেন এতে তাদের ক্যারিয়ার নষ্ট হবে।

‘বেদের মেয়ে জোসনা’খ্যাত অভিনেত্রী অঞ্জু ঘোষও বিয়ের খবর গোপন রেখেছিলেন। তিনি সবার চোখ ফাঁকি দিয়ে বিয়ে করেছিলেন নির্মাতা এফ কবীর চৌধুরীকে।

জ্যেষ্ঠ বিনোদন সাংবাদিক ইমরুল শাহেদ একদিন কথাপ্রসঙ্গে জানিয়েছিলেন সেই ঘটনা। ইমরুল শাহেদের ভাষ্য অনুযায়ী তখন চলচ্চিত্র পাড়ায় ‘যত দোষ অঞ্জু ঘোষ’ এমন একটি কথা প্রচলিত ছিল। অঞ্জু তখন ‘সওদাগর’, ‘আবে হায়াৎ’, ‘নরম গরম’ সিনেমার সাফল্যের কারণে সুপার-ডুপার হিট। সমকালীন তারকা শাবানা, রোজিনাসহ আরো অনেককে অতিক্রম করে প্রথম সারির তারকার আসনে চলে এসেছেন। এ কারণে তাকে অনেকেই হিংসার চোখে দেখত। কিন্তু তিনিও যে বিতর্কের উর্ধ্বে ছিলেন এমন নয়। জনপ্রিয়তা অনেক সময় মানুষকে স্বেচ্ছাচারী করে তোলে। অঞ্জুর ক্ষেত্রেও এমনটা ঘটেছিল।

ইমরুল শাহেদ বলেন, ‘‘একদিন রাতের এফডিসিতে গিয়েছিলাম। সেদিন ছিল বুধবার। অঞ্জু এবং আলমগীর পরিচালক হাফিজউদ্দিনের ‘আওলাদ’ সিনেমার শুটিং করছিলেন এফডিসির প্রশাসনিক ভবনের দোতলায়। অঞ্জুর পরনে ছিল পুলিশের পোশাক। আমাকে দেখেই অঞ্জু স্যালুট দিয়ে বলল, ‘থেকো তোমার সঙ্গে কথা আছে।’’

শুটিং শেষ হতে সেদিন বেশ রাত হয়েছিল। প্যাকআপের পর অঞ্জু ইমরুল শাহেদকে নিজের গাড়িতে তুলে নেন। গাড়ি ছুটে চলে সংসদ ভবনের পাশে অঞ্জুর বাসভবনের দিকে। গাড়িতে হঠাৎ অঞ্জু বলেন, ‘কাল একটি পত্রিকায় পরিচালক এফ কবীর চৌধুরী এবং আমার বিয়ের খবর প্রকাশ হতে যাচ্ছে। বিশ্বাস করো আমি তাকে বিয়ে করিনি।’

ঘটনা শুনে ইমরুল শাহেদ নিরাবেগ কণ্ঠে জানতে চান- তুমি যখন বিয়ে করোনি, তখন সংবাদ প্রকাশ হওয়ার পর তুমি কি পত্রিকাটির বিরুদ্ধে মামলা করবে?

অঞ্জু উত্তর দিয়েছিলেন, ‘দরকার হলে তাই করতে হবে। পুরো ব্যাপারটাই আহমদ জামান চৌধুরী (চিত্রালী সম্পাদক) ও কবীর ভাইয়ের ষড়যন্ত্র।’

ততক্ষণে গাড়ি ফার্মগেট পৌঁছে গেছে। ইমরুল শাহেদ গাড়ি থামিয়ে মাঝ রাস্তায় নেমে গেলেন। তার আগে পকেট থেকে অঞ্জুর বিয়ের কাবিননামা বের করে অঞ্জুর চোখের সামনে মেলে ধরে বললেন, ‘এটা কারো ষড়যন্ত্র নয়। তুমি বিয়ে করেছ আমি জানি। এখন একটা সত্যকে আমাকে দিয়ে তুমি মিথ্যা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে চাইছ!’

অঞ্জু সেদিন খুব অবাক হয়েছিলেন। ঘটনা সামাল দিতে বলেছিলেন, ‘কাল সকালে বাসায় এসো। এ নিয়ে বিস্তারিত কথা বলব।’ কিন্তু পরদিন আর অঞ্জুর বাসায় যাননি এই জ্যেষ্ঠ বিনোদন সাংবাদিক।

অঞ্জু ঘোষ বর্তমানে ভারতে সল্টলেকে আছেন। সেখানেই স্থায়ীভাবে বাস করছেন।

এম এউ, ২২ জুন

2021-06-22