Tuesday , 3 August 2021
Home / খবর / উপমহাদেশের কিংবদন্তি অভিনেতা দিলীপ কুমার আর নেই

উপমহাদেশের কিংবদন্তি অভিনেতা দিলীপ কুমার আর নেই


মুম্বাই, ৭ জুলাই – উপমহাদেশের কিংবদন্তী অভিনেতা দিলীপ কুমার (ইউসুফ খাঁন) আর নেই। (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। বুধবার সকালে স্থানীয় একটি হাসপাতালে তিনি শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৯৮ বছর। তাঁর মৃত্যুতে ভারত সহ সমগ্র উপমহাদেশ জুড়ে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

দীর্ঘদিন ধরেই বয়সজনিত অসুস্থতায় ভুগছিলেন দিলীপ কুমার। মুম্বইয়ের হিন্দুজা হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি ছিলেন। গত ৩০ জুন তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। কয়েকদিন আগেই তার শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল বলে টুইটারে সায়রা বানু জানিয়েছিলেন।

ছয় দশকের অভিনয় জীবনে দিলীপ কুমার ৬৫টিরও বেশি ফিল্মে অভিনয় করেছেন। বলিউডে তিনি পরিচিত ছিলেন ট্র্যাজেডি কিং নামে।

দিলীপ কুমারের জন্ম ১৯২২ সালে পাকিস্তানের পেশোয়ারে। তার প্রকৃত নাম মহম্মদ ইউসুফ খান। ১৯৪৪ সালে চলচ্চিত্রে আত্মপ্রকাশ করেন তিনি। জুগনু তার প্রথম বক্স অফিস হিট সিনেমা। এছাড়া নায়া দওর, মুঘল-ই-আজম, দেবদাস, রাম অউর শ্যাম, আন্দাজ, মধুমতী এবং গঙ্গা-যমুনার মতো ছবিতে তিনি অভিনয় করেন। ১৯৯৮ সালে শেষবার সিনেমায় অভিনয় করেন বর্ষীয়ান এই অভিনেতা। ১৯৬৬ সালে অভিনেত্রী সায়রা বানুর সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন দিলীপ কুমার। গোপী, সাগিনা ছবিতে জুটিবদ্ধ হয়ে কাজ করেছেন তারা।

সেরা অভিনেতা হিসেবে ৮টি ফিল্ম ফেয়ার পুরস্কার জিতেছেন দিলীপ কুমার। সবচেয়ে বেশি পুরস্কার জেতার গিনিস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডও রয়েছে তার। ১৯৯১ সালে পদ্মভূষণ সম্মান দেওয়া হয় দিলীপ কুমারকে। ভারতীয় সিনেমায় অসামান্য অবদানের জন্য ১৯৯৪ সালে ‘দাদা সাহেব ফালকে’ পুরস্কার পান। ২০১৫ সালে ভারত সরকার তাকে ‘পদ্মবিভূষণ’ সম্মান দেয়। ১৯৯৮ সালে দিলীপ কুমারকে ‘নিশান-ই-ইমতিয়াজ’ সম্মানে সম্মানিত করে পাকিস্তান সরকার। ২০০০ থেকে ২০০৬ পর্যন্ত রাজ্যসভার সাংসদও ছিলেন তিনি।

এন এইচ, ০৭ জুলাই

2021-07-07